ডাচ বাংলা ব্যাংক সেভিংস একাউন্ট খোলার নিয়ম

আপনি কি ডাচ বাংলা ব্যাংক সেভিংস একাউন্ট খোলার নিয়ম খুজছেন? তবে আপনার জন্য আজকের এই পোস্ট। যেখানে আপনি ডাচ বাংলা ব্যাংক সেভিংস একাউন্ট সম্পর্কিত সকল ইনফর্মেশন খুজে পাবেন।

ডাচ বাংলা ব্যাংক সেভিংস একাউন্ট | dutch bangla bank savings account

বাংলাদেশ এবং নেদারলেন্ডের যৌথ উদ্দোগে প্রতিষ্ঠিত DBBL ব্যাংক বর্তমানে ব্যাংকিং খাতে খুবই সফলতা দেখাচ্ছে। তাদের শাখা ও এটিএম, মোবাইল ব্যাংকিং, এজেন্ট ব্যাংকিং সহ বিভিন্ন ধরণের সার্ভিস তারা প্রোভাইড করছে বর্তমানে। শাখায় তারা যে ব্যাংকিং সুবিধা দিচ্ছে তা পেতে হলে আপনার একটি একাউন্ট করতে হবে।

তাই চলুন এখন ডাচ বাংলা ব্যাংক সেভিংস একাউন্ট খোলার নিয়ম বা DBBL savings account খোলার নিয়ম দেখে নেয়া যাক। আর কি কি ডকুমেন্টস দরকার হবে, সেভিংস একাউন্টের সুবিধা বা কয় ধরণের সেভিংস একাউন্ট করার সুযোগ রয়েছে, এসব তথ্য জেনে নেয়া যাক এই একটি আর্টিকেল থেকে।

সেই সাথে আপনাদের করা কিছু কমন প্রশ্নের উত্তর দেয়ার চেষ্টা করবো এই পোস্টের একদম শেষে। চলুন তাহলে আর্টিকেলটি শুরু করা যাক।

ডাচ বাংলার সেভিংস একাউন্ট কত ধরনের?

ডাচ বাংলার সেভিংস একাউন্ট প্রধানত সাত ধরনের। সেগুলো হলো:

1. Savings Deposit Plus Account
2. Savings Deposit Account-Standard
3. Excel Savings Account
4. Interest Free Savings Deposit Account
5. Current Deposit Account
6. Special Notice Deposit Account
7. DBBL School Savers Account

এখানে ডাচ বাংলা ব্যাংকের প্রায় সাত ধরণের একাউন্টের মধ্যে তিনটি প্রধান ধরণের একাউন্ট নিয়ে নিচে আলোচনা করা হলো।

Savings Deposit Account-Standard: সচরাচর লোকেরা এই একাউন্টি করে থাকে। এই ধরনের একাউন্টে আপনাকে ৫০০/- টাকা মিনিমাম জমা করে একটি একাউন্ট খুলতে হবে।

Interest Free Savings Deposit Account: এই একাউন্টি প্রধানত যারা সুদ ছাড়া ব্যাংকিং করতে চান তাদেরকে উদ্দ্যেশ্য করে চালু করা হয়েছে। তবে এটি খুলতে হলে ব্যাংকে মিনিমাম ডিপোজিট করতে হবে ৫০০০/- টাকা।

DBBL School Savers Account: এটি হলো স্টুডেন্ট একাউন্টের মতো। স্কুল ছাত্রদের অন্য একাউন্ট খোলার সুযোগ নেই। তাই তাদের জন্য এই একাউন্ট বিশেষ ভাবে চালু করা হয়েছে। এটি তারা খুলতে পারবে সর্বোনিন্ম ১০০/- টাকা দিয়ে।

সেভিংস একাউন্ট খুলতে যা যা লাগে

অন্য সকল ব্যাংকের মতো কিছু কমন নথি পত্র আপনাকে সংগ্রহ করতে হবে যা ডাচ ব্যাংলার সেভিংস একাউন্ট খুলতে আপনার দরকার পড়বে। আসুন দেখি কি কি ডকুমেন্টস আপনার দরকার হবে এই একাউন্ট খুলার জন্য।

  • দুই কপি পাসপোর্ট সাইজের ছবি লাগবে যিনি একাউন্ট করতে আগ্রহি তার।
  • পরিচয়পত্র যা ছবি যুক্ত হতে হবে (ভোটার আইডি কার্ড/ পাসপোর্ট/ বা অন্য কোনো আইডি)।
  • ইন্ট্রুডিউছারের এক কপি ছবি ও ভোটার কার্ড এর কপি (যার মাধ্যমে আপনি একাউন্ট করতে এসেছেন)।
  • ইউটিলিটি বিলের কপি।
  • নমিনির এক কপি ছবি ও জাতীয় পরিচয় পত্রের কপি।
  • ট্রেড লাইসেন্স (যদি ব্যবসায়ি হয়ে থাকেন)।
  • এছাড়াও প্রয়োজনে অন্যান্য নথি দরকার হতেও পারে।
আরো পড়ুন- জন্ম নিবন্ধন দিয়ে ব্যাংক একাউন্ট খোলার নিয়ম

ডাচ বাংলা ব্যাংক সেভিংস একাউন্ট খোলার নিয়ম

ডাচ বাংলা ব্যাংকে আপনার একটি সেভিংস একাউন্ট খুলতে প্রয়োজনিয় নথিপত্র, যেমন: ছবি, এনআইডি, নমিনির ছবি এবং এনআইডি, ইত্যাদি সংগ্রহ করে আপনার নিকটস্থ ডাচ বাংলা ব্যাংকের অফিসে চলে যান। সেখানে ব্যাংক আপনাকে একটি ফর্ম দিবে আপনার একাউন্ট খোলার জন্য। আপনাকে এই ফর্ম এবং নির্দিষ্ট পরিমাণ টাকা জমা করে একাউন্ট খুলতে হবে।

ব্যাংক থেকে ফর্ম সংগ্রহ করার পর আপনাকে তা পূরণ করতে হবে নির্ভুল ভাবে। আপনার কাছে থাকা ডকুমেন্টস দেখে এটি পূরণ করুন। কোনো কিছু বুঝতে সমস্যা হলে ব্যাংকের এজেন্টদের কাছে বিষয়টি বুঝে নিন।

তবে বর্তমানে দেখা যায় যে ব্যাংকের এজেন্টরা নিজেরাই আপনার কাছ থেকে ইনফর্মেশন নিয়ে ফর্মটি পূরণ করে দেন। সেক্ষেত্রে বিষয়টি আপনার জন্য আরো সহজ হয়ে যাবে। আপনি শুধু তাদের সঠিক ইনফর্মেশনটি দিন।

ফর্ম পূরন শেষে আপনার ছবি, আপনার নমিনির ছবি এবং অন্যান্য সকল ডকুমেন্টস গুলো ফর্মের সাথে দিয়ে ব্যাংকে জমা দিন এবং নির্ধারিত একাউন্টের ধরণের জন্য নির্ধারিত করা ফি ডিপোজিট করুন।

এরপর ব্যাংক হয়তো আপনার কাছ থেকে এক কার্যদিবষ সময় নিবে একাউন্ট সচল করে দেয়ার জন্য। একাউন্ট সচল হলে তারা তা আপনাকে এসএমএস এর মাধ্যমে জানিয়ে দিবে।

সেভিংস একাউন্ট করার নিয়ম ভিডিওতে দেখুন

ডাচ বাংলা ব্যাংক সেভিংস একাউন্ট চার্জ

  • ডাচ বাংলা ব্যাংকে ১০,০০০ টাকা পর্যন্ত বাৎসরিক কোনো চার্জ দিতে হয় না।
  • ১০,০০০ টাকার ওপর সর্বোচ্চ ২৫,০০০ টাকা পর্যন্ত ৬ মাসে ১০০ টাকা চার্জ কাটা হবে।
  • ২৫,০০০ এর উপর সর্বোচ্চ ২০০,০০০ লক্ষ টাকা পর্যন্ত ৬ মাসে ২০০ টাকা চার্জ কাটা হবে।
  • ২০০,০০০ এর উপর থেকে সর্বোচ্চ ১০,০০,০০০ লক্ষ টাকা পর্যন্ত ২৫০ টাকা চার্জ কাটা হবে।
  • এই ১০,০০,০০০ টাকা উপর যাই রাখুন না কেন, এর জন্য চার্জ কাটা হবে ৩০০ টাকা করে।
  • এখানে ইন্সিডেন্টাল কোনো চার্জ নেই।
  • একাউন্ট যদি বন্ধ করতে চান যেকোনো কারণে তবে চার্জ কাটা হবে ২০০/-।

ডাচ বাংলা ব্যাংক একাউন্ট ব্যালেন্স চেক করার নিয়ম

আপনি অনেকগুলো নিয়মে ডাচ বাংলা ব্যাংকে থাকা আপনার একাউন্টি চেক করতে পারবেন। যেমন ধরুন আপনি এটিএম থেকে টাকা তুলতে গেলে সেখানে বা আপনার মোবাইলে আপনার টাকা চেক করতে পারবেন। এছাড়া আরো যেসকল নিয়মে আপনি আপনার একাউন্ট চেক করতে পারবেন তা দেখে নিন নিচ থেকে।

১. মোবাইল এপ নেক্সাস পে ব্যবহার করে
২. ইন্টারনেট ব্যাংকিং এর মাধ্যমে
৩. এসএমএস এর মাধ্যমে।
৪. এটিএম বুথ থেকে

এসকল নিয়মের বিস্তারিত আলোচনা করা হয়েছে ডাচ বাংলা একাউন্ট চেক করার নিয়ম এই পোস্টে। এখান থেকে বিস্তারিত ভাবে জেনে নিতে পারবেন কোথায় কিভাবে একাউন্ট চেক করা যায়।

ডাচ বাংলা ব্যাংক সেভিংস একাউন্ট এর সুবিধা

ডাচ বাংলা ব্যাংক তাদের আন্ডারে যে সকল গ্রাহকরা সেভিংস একাউন্ট করে তাদের বেশ কিছু সুযোগ সুবিধা দিয়ে থাকে। এর মধ্যে কিছু সুযোগ সুবিধা আমি নিচে তুলে ধরলাম।

  • ইন্টারনেট ব্যাংকিং সেবা থাকবে।
  • ডেভিট অথবা ক্রেডিট কার্ড নেওয়ার সুযোগ।
  • লোন সেবা নেওয়া যাবে।
  • কম খরচে লেনদেনের সুযোগ।
  • জমা টাকার উপর মুনাফা পাওয়ার সুযোগ।
  • একাউন্টের বিপরিতে প্রথম বছর ডেবিট কার্ড একদম ফ্রি।
  • যেকোনো শাখায় টাকা উত্তোলন বা টাকা প্রয়োজনে জমা করা যাবে।
  • যৌথ ব্যাক্তির নামে এই একাউন্ট ওপেন করা সম্ভব।
  • RTGS এবং BEFTIN সুবিধা এভেইলেবল।

এগুলো ছাড়াও আরো অনেক সুবিধা আছে ডাচ বাংলার সেভিংস একাউন্টে।

ডাচ বাংলা সেভিংস একাউন্ট এর অসুবিধা

ডাচ বাংলা ব্যাংকের সেভিংস একাউন্টে কিছু অসুবিধা আছে, যেমন:

  • বিভিন্ন প্রকার চার্জ আছে যা একাউন্টধারীর একাউন্ট থেকে কেটে রাখা হবে।
  • এছাড়া অন্যান্য কিছু সার্ভিসের জন্য ডাচ বাংলা ব্যাংক চার্জ করে থাকে, যেমন: এসএমএস ব্যাংকিং, ইন্টারনেট ব্যাংকিং।
  • আর ১৮ বছরের নিচে কেউ এই একাউন্ট খুলতে পারবে না।
  • আবার এই একাউন্টে ইচ্ছামতো লেনদেনও করা যায় না। আপনার মাসিক আয়ের সাথে সামঞ্জস্যতা রেখে এই একাউন্টের লেনদেনের সিমা ঠিক করা হয়ে থাকে।
ফিক্সড ডিপোজিট করার জন্য কোন ব্যাংক সবচেয়ে ভা

ডাচ বাংলার সেভিংস একাউন্ট সম্পর্কিত প্রশ্ন এবং উত্তর

ডাচ বাংলা ব্যাংক সেভিংস একাউন্ট খুলতে প্রাইমারি ডিপোজিট কত লাগে?

এটি আসলে একাউন্টের উপর নির্ভর করে। আপনি যদি Savings Deposit Account-Standard একাউন্ট করেন, তবে একাউন্ট করতে পারবেন ৫০০ টাকা জমা করে। আবার যদি স্টুডেন্ট একাউন্ট করতে চান তবে লাগবে ১০০ টাকা। এভাবে ভিন্ন ভিন্ন একাউন্টের জন্য ভিন্ন ভিন্ন প্রাইমারি ডিপোজিট এমাউন্ট হয়ে থাকে।

ডাচ বাংলা ব্যাংক সেভিংস একাউন্ট সুদের হার

ডাচ বাংলা ব্যাংকে নরমাল সেভিং একাউন্ট এর বিপরীতে সুদের পরিমাণ হচ্ছে সর্বোচ্চ ২%।

ডাচ বাংলা ব্যাংকে একাউন্ট ক্লোজিং ফি কতো?

ডাচ বাংলা ব্যাংকের একাউন্ট বন্ধ করতে চার্জ কাটা হবে ২০০ টাকা।

চেক বই পেতে কতো দিন সময় লাগে?

একাউন্ট করার পর চেকের জন্য আবেদন করলে ডাচ বাংলা ব্যাংক ৭-১৪ দিনের মতো সময় নিতে পারে আপনার চেক বুক রেডি করে দিতে।

ডাচ বাংলা ব্যাংকের ব্যালেন্স চেক কিভাবে করবেন?

প্রধানত তিনটি উপায়ে আপনি আপনার একাউন্টের ব্যালেন্স চেক করতে পারেন। যেমন: এটিএম বুথের মাধ্যমে, ডাচ বাংলার মোবাইল ব্যাংকিং অ্যাপস এর মাধ্যমে ও ডাচ বাংলার ইন্টারনেট ব্যাংকিং এর মাধ্যমে। এটি ছাড়াও আরো কিছু উপায় আছে।

বাংলাদেশে সর্বপ্রথম ডিজিটাল পদ্ধতিতে লেনদেন শুরু করে কারা?

ডাচ বাংলা ব্যাংক সর্বপ্রথম বাংলাদেশের ডিজিটাল পদ্ধতিতে লেনদেন করার পদ্ধতি শুরু করে।

ডাচ বাংলা ব্যাংকের মোবাইল ব্যাংকিং এর কোডটি কত?

ডাচ বাংলা মোবাইল ব্যাংকিং কোড হচ্ছে *322#, যা মোবাইলে ডায়াল করে আপনি আপনার একাউন্ট সংক্রান্ত বেশ কিছু সুযোগ সুবিধা উপভোগ করতে পারবেন।

অন্যান্য ব্যাংকের একাউন্ট খুলার নিয়ম পড়ুন

আল আরাফাআল আরাফাহ ইসলামী ব্যাংক একাউন্ট খোলার নিয়ম
ব্র্যাক ব্যাংকব্র্যাক ব্যাংক একাউন্ট খোলার নিয়ম
ব্যাংক এশিয়াব্যাংক এশিয়া একাউন্ট খোলার নিয়ম
ইসলামী ব্যাংকইসলামী ব্যাংকের একাউন্ট খোলার নিয়ম
সোনালী ব্যাংকসোনালী ব্যাংকের একাউন্ট খোলার নিয়ম
প্রাইম ব্যাংকপ্রাইম ব্যাংক একাউন্ট খোলার নিয়ম
অন্যান্য ব্যাংকের একাউন্ট খুলার নিয়ম।

হোম পেজে যেতে ক্লিক করুন bankline এ।

Similar Posts

One Comment

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।