অগ্রণী ব্যাংক অনলাইন ব্যাংকিং সুবিধা এবং রেজিস্ট্রেশন প্রসেস

অগ্রণী ব্যাংক অনলাইন ব্যাংকিং (Agrani bank online banking) কার্যক্রম শুরু করেছে যাতে করে তাদের গ্রাহক পর্যায়ে সহজ ব্যাংকিং সেবা পৌছে দিতে পারে। এর জন্য তারা একটি মোবাইল এপ চালু করেছে।

অগ্রণী ব্যাংক অনলাইন ব্যাংকিং | Agrani bank online banking

AB bank এর রয়েছে অনেক সুবিধা। গ্রাহক ঘরে বসে এই এপ ব্যবহার করে মোটামুটি তাদের দৈনন্দিন ব্যাংকিং কার্যক্রম পরিচালনা করতে পারবে খুব সহজে।যাদের অগ্রণী ব্যাংকে একটি একাউন্ট আছে তারা অগ্রণী ব্যাংকের ইন্টারনেট ব্যাংকিং এপটি ব্যবহার করতে পারবে।

তাহলে চলুন দেখে নেয়া যাক অগ্রণী ব্যাংক অনলাইন ব্যাংকিং রেজিস্ট্রেশন বা Agrani bank online banking registration এর নিয়ম এবং সুবিধা গুলো কি কি ও অনলাইন ব্যাংকিং রেজিস্ট্রেশন প্রসেসটি কেমন এবং রেজিস্ট্রেশন করতে কি কি লাগে।

অগ্রণী ব্যাংক অনলাইন ব্যাংকিং এর সুবিধা গুলো

এছাড়াও আরো বিভিন্ন রকম কাজ আপনি এই অনলাইন ব্যাংকিং এর মধ্য দিয়ে সম্পন্ন করতে পারবেন।

অনলাইন ব্যাংকিং রেজিস্ট্রেশন করার জন্য যা যা লাগবে

  • একটি অগ্রণী ব্যাংক একাউন্ট নাম্বার।
  • ন্যাশনাল আইডি কার্ড।
  • একটি স্মার্ট ফোন।

অগ্রণী ব্যাংক অনলাইন ব্যাংকিং রেজিস্ট্রেশন

রেজিস্ট্রেশন কিভাবে করতে পারবেন

প্রথমে প্লে স্টোর থেকে অগ্রণী ব্যাংকের মোবাইল এপ “Argani Smart App” ডাউনলোড করতে হবে। ডাউনলোড হয়ে গেলে তা ওপেন করতে হবে। ওপেন করার পর সেখানে রেজিস্ট্রেশন করার অপশন পেয়ে যাবেন।

আর আপনার কাছে যদি প্রসেস গুলো কঠিন মনে হয় তবে ব্যাংকের শাখায় গিয়ে চাইলে তাদের সাহায্য নিয়ে আপনার রেজিস্ট্রেশন সম্পন্ন করতে পারবেন।

রেজিস্ট্রেশন পদ্ধতি

রেজিস্ট্রেশন করার জন্য প্রথমে এপসটি ওপেন করার পর নিচে ”রেজিস্ট্রেশন করুন” এমন একটি অপশন পেয়ে যাবেন। সেখানে ক্লিক করলে সেখানে নতুন একটি পেজে একটি নটিশ দেখতে পাবেন।

নটিশে বলা হবে আপনার আপনার কোন কোন জিনিস গুলো প্রয়োজন এবং সেগুলো যেনো আপনি হাতের কাছে রাখেন। নটিশ দেখে ”পরবর্তি” অপশনে ক্লিক করে দিতে হবে।

#ইনফর্মেশন সাবমিট: পরবর্তি পেজে দরকার হবে আপনার একাউন্ট নাম্বার, মোবাইল নাম্বার, এনআইডি নাম্বার ও জন্ম তারিখ। তথ্য গুলো নির্ভুল ভাবে পূরণ করতে হবে। দেয়া শেষ হলে অনুষন্ধান করুন বাটনে ক্লিক করতে হবে।

#মোবাইল নাম্বার যাচাই: এরপর আপনার সামনে মোবাইল নাম্বার যাচাই করার জন্য একটি ওটিপি চলে আসবে। ওটিপি দেয়া হলে তারপর ”নিশ্চিত করুন” অপশনে ক্লিক করতে হবে।

#ইনফর্মেশন রিভিউ: তারপর আপনার আইডি কার্ড অনুযায়ি আপনার ডিটেইলস চলে আসবে। তথ্য গুলো চেক করে ”পরবর্তি” অপশনে ক্লিক করলে আপনার সামনে ”অভিনন্দন” ম্যানেজ শো করবে।

#পাসওয়ার্ড সেট: এখন ”পাসওয়ার্ড সেট করুন” অপশনে ক্লিক করুন। তারপর আপনাকে পাসওয়ার্ড দিতে বলা হবে। একটি স্ট্রং পাসওয়ার্ড দুবার দেয়ার মাধ্যমে পাসওয়ার্ডটি সেট করতে পারবেন।

#ইউজারের ফটো সাবমিট: পাসওয়ার্ড পরিবর্তন সফল হলে আপনার পরবর্তি কাজ হবে আপনার ইউজার আইডি বা মোবাইল নাম্বার দিয়ে এবং পাসওয়ার্ড দিয়ে লগইন করা। লগইন করলে দেখতে পাবেন যে এখানে একটি ছবি তুলতে হবে।

#এনআইডি ফটো সাবমিট: যথাযথ ভাবে একটি ছুবি তুলা সম্পন্ন করলে তারপর ন্যাশনাল আইডি কার্ডের উভয় পার্শের ছবি তুলতে বলা হবে। এটিও সম্পন্ন হলে আপনাকে আপনার সিগনেচারের ছবি তুলতে বলা হবে।

#সিগনেচার ফটো সাবমিট: সিগনেচারের ছবি আপলোড করা হলে পরবর্তি বাটনে ক্লিক করতে হবে, তাহলে আপনার একাউন্ট রেজিস্ট্রেশন সম্পন্ন হয়ে যাবে।

#শেষকথা: তারপর আপনাকে একটু অপেক্ষা করতে হবে একাউন্ট রেজিস্টেশন সম্পর্কে ব্যাংকের আপডেট পাওয়ার জন্য যাতে করে আপনার একাউন্ট পরিচালনা আপনি করতে পারেন তার এপ্রুভাল পেতে।

এই ব্যাংকের অন্য পোস্টগুলো পড়ুন

<<বাংলাদেশে অনলাইন ব্যাংকিং সম্পর্কে জানতে আরো পড়ুন।>>

Similar Posts

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না।