ব্যাংক একাউন্ট বন্ধ হয়ে গেছে, এখন করনিয় দেখুন

আপনারা অনেকে জানেন না যে লেনদেন না করলে কি ব্যাংক একাউন্টটি সচল থাকবে নাকি এটি অচল হয়ে যায়? একটা ব্যাংক একাউন্টে কতদিন লেনদেন না করলে ব্যাংক একাউন্ট বন্ধ হয়ে যায়, Dormant account বা ডরমেন্ট একাউন্ট কি?

ADVERTISEMENT
ব্যাংক একাউন্টে কতদিন লেনদেন না করলে ব্যাংক একাউন্ট বন্ধ হয়ে যায় | Dorment account reactivate

আবার আপনার ব্যাংক একাউন্ট বন্ধ হয়ে গেছে, চাইলে কি সেই একাউন্টি পূনরায় সচল করা সম্ভব হবে কিনা? অথবা আপনার ব্যাংক একাউন্ট অনেক দিন ধরে বন্ধ আছে, এখন এই একাউন্টের সাথে ব্যাংক কি করবে?

এমন অনেক প্রশ্ন হয়তো আপনার মনে ঘুরছে। আপনি যদি এই ব্যাংক একাউন্টে কতদিন লেনদেন না করলে ব্যাংক একাউন্ট বন্ধ হয়ে যায়, বা অন্য ব্যাংক একাউন্ট বন্ধ হয়ে যাওয়া সম্পর্কিত এবং এটি সচল করা সম্পর্কিত বিষয়ে জানতে চান তবে আপনি একদম সঠিক জায়গায় এসেছেন।

ADVERTISEMENT

এই পোস্টে আমি এই বিষয়ে বিস্তারিত আলোচনা করবো। সেই সাথে এই ব্যাংক একাউন্ট বন্ধ হয়ে যাওয়া ও সচল করা নিয়ে আপনাদের সম্ভাব্য সকল প্রশ্নের উত্তর দেয়ার চেষ্টা করবো এই পোস্টে।

ডরমেন্ট একাউন্ট কি?

ব্যাংকে কোনো হিসাব যদি একটি নির্দিষ্ট সময়ের জন্য ইনএকটিভ থাকে, অর্থাৎ কোনো প্রকার লেনদেন যদি এই একাউন্টে না ঘটে তখন ব্যাংক এই হিসাবটিকে ডোরমেন্ট বা শুপ্ত একাউন্ট হিসেবে চিন্হিত করে।

ADVERTISEMENT

আর এই সময়টি এক এক একাউন্টের ক্ষেত্রে এক এক রকম। রাষ্ট্র এবং একাউন্টের ধরণ অনুযায়ি একাউন্ট ডোরমেন্ট হওয়ার সময় ভিন্ন হয়ে থাকে।

ডোরমেন্ট একাউন্টের অসুবিধা

একটি একাউন্ট ডোরমেন্ট হয়ে গেলে সেখানে কিছু রেসট্রিকশন আসে। আপনি চাইলেই একটি ডোরমেন্ট একাউন্ট থেকে অর্থ লেনদেন করতে পারবেন না। এখানে এক্সট্রা কিছু নিয়ম যুক্ত হয় লেনদেনের ক্ষেত্রে।

একাউন্ট ডোরমেন্ট অবস্থায় থাকা কালীন উক্ত একাউন্টের মালিক এই একাউন্টটির অর্থ দাবি করতে পারে। তবে এই একাউন্ট থেকে টাকা তুলতে শাখা ব্যাবস্থাপকের অনুমতির প্রয়োজন হয়।

ADVERTISEMENT

এছাড়া একাউন্টের মালিক কে একাউন্টি পূনরায় সচল করতে হয় সাধারণ একাউন্টের মতো ব্যবহার করতে। এর জন্য তাকে ব্যাংকে একটি আবেদন জমা করতে হয় ব্যাবস্থাপক বরাবর।

কতদিন লেনদেন না করলে ব্যাংক একাউন্ট বন্ধ হয়ে যায়?

ব্যাংকের নিয়ম অনুযায়ি এনএসডি ও চলতি হিসাবে ৬ মাস যদি কোনো প্রকার লেনদেন না করা হয় তবে আপনার একাউন্টি অপ্রচলিত একাউন্ট হিসাবে ধরে নেয়া হবে এবং এর থেকে বেশি হলে সময় হলে ডোরমেন্ট হিসেবে গন্য হবে।

একই ভাবে সেভিংস একাউন্টের ক্ষেত্রেও একটি নির্দিষ্ট বেধে দেয়া সময় আছে। আপনি যদি ১৮ মাস আপনার সেভিংস একাউন্টে কোনো প্রকার লেনদেন না করেন তবে আপনার একাউন্ট অপ্রচলিত একাউন্ট ধরা হবে এবং এর থেকে বেশি হলে ডোরমেন্ট একাউন্ট হিসেবে গন্য হবে।

ADVERTISEMENT

আসলে অনেক সময় দেখা যায় কোনো মানুষ মারা গেলে বা ব্যাক্তির হিসাবে কম টাকা থাকলে ঐ ব্যাক্তি অনেক সময় আর ব্যাংকে যোগাযোগ করে না। এর ফলে নির্দিষ্ট সময় পর একাউন্ট গুলো বন্ধ হয়ে যায়।

বন্ধ একাউন্ট গুলোর কি হয়?

বন্ধ একাউন্ট গুলো সুপ্ত থাকতে থাকতে একটি নির্দিষ্ট সময় পর আর এটি গ্রাহকের একাউন্ট থাকে না। এর মালিকানা বাংলাদেশ ব্যাংকের হাতে চলে যায়।

ব্যাংক কোম্পানি আইন অনুযায়ি, মেয়াদি আমানতের ক্ষেত্রে মেয়াদ উত্তীর্ণ হওয়ার তারিখ থেকে ১০ বছরের মধ্যে ব্যাংকের শাখায় মালিক যদি যোগাযোগ না করে তবে তা অদাবিকৃত আমানত হিসেবে গণ্য হবে।

অন্য কোনো ধরণের আমানত যেমন, চলতি, সঞ্চয়ী, স্বল্পমেয়াদি আমানতের ক্ষেত্রে সর্বশেষ লেনদেন বা হিসাব বিবরণীর সর্বশেষ প্রাপ্তিস্বীকারের তারিখ থেকে এই ১০ বছর সময় গণনা শুরু হবে।

ADVERTISEMENT

আমানতকারী যদি ১০ বছর ধরে তার সম্পদ পরিদর্শন না করেন তবে তা অদাবিকৃত সামগ্রী হিসেবে গণ্য হবে এবং সংশ্লিষ্ট দলিল বা ব্যবস্থার শর্ত অনুযায়ী বাংলাদেশ ব্যাংকের কাছে হস্তান্তর করতে হবে।

বন্ধ ব্যাংক একাউন্ট চালু করার নিয়ম

ডোরমেন্ট হিসাব পূনরায় সচল করা যায়। আপনার ডোরমেন্ট একাউন্টি পূনরায় চালু করতে আপনাকে ব্যাংকে যোগাযোগ করতে হবে। সেই সাথে আপনাকে একটি আবেদন পত্র ব্যাংকের শাখা ব্যাবস্থাপক বরাবর করতে হবে।

আবেদনে আপনার একাউন্ট নাম্বারটি দিতে হবে এবং এরপর আপনার বিষয়টি বিবেচনায় নিয়ে ব্যাংক একাউন্টি পূনরায় সচল করে দিতে অনুরোধ করতে হবে।

ADVERTISEMENT

তারপর ব্যাংক থেকে একটি ফর্ম সংগ্রহ করতে হবে এবং সেখানে প্রয়োজনিয় ইনফরমেশন দিতে হবে।

বন্ধ ব্যাংক একাউন্ট চালু করার দরখাস্ত

তারিখ:

বরাবর
শাখা ব্যবস্থাপক,
ব্যাংকের নাম,
শাখা ঠিকানা,

বিষয়- ব্যাংক অ্যাকাউন্ট পুনরায় সচল করার জন্য আবেদন।

জনাব,

এটি আপনাকে জানানোর জন্য যে আপনার শাখায় আমার অ্যাকাউন্ট নম্বর ************ একটি সুপ্ত/নিষ্ক্রিয় অবস্থায় রয়েছে। অনুগ্রহ করে একাউন্টি পুনঃসক্রিয় করার জন্য প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নিন।

আমি আশা করি আমার আবেদনটি অনুমোদনের জন্য বিবেচনা করা হবে।

ধন্যবাদান্তে.
নাম-
স্বাক্ষর-
ঠিকানা-

ডোরমেন্ট একাউন্ট চালু করতে চার্জ কতো লাগে?

ডোরমেন্ট একাউন্ট চালু করার জন্য কোনো রকম চার্জ প্রজোয্য হবে না।

বন্ধ ব্যাংক একাউন্ট নিয়ে কিছু প্রশ্ন এবং উত্তর

বন্ধ একাউন্ট পূনরায় সচল করা যায় কি?

হ্যাঁ, অবশ্যই। ব্যাংক আপনার বন্ধ একাউন্ট সচল করার সুযোগ দিবে। তবে নির্দিষ্ট একটি সময়ের মধ্যে এই সচল করার জন্য চেষ্টা করতে হবে। সময় শেষ হওয়ার পর করলে লাভ হবে না।

একাউন্ট সচল করতে চার্জ কতো লাগে?

আপনার বন্ধ একাউন্ট সচল করতে কোনো টাকা লাগবে না। এটি ব্যাংক ফ্রিতে করে দিবে।

একাউন্ট সচল করার নিয়ম কি?

আপনাকে উপরে দেখানো নিয়মে আবেদন করতে হবে।

ব্যাংক একাউন্ট নিয়ে আরো পড়ুন

১. ব্যাংক একাউন্ট বন্ধ করার নিয়ম
২. ব্যাংক একাউন্ট ট্রান্সফার করার নিয়ম
৩. যৌথ ব্যাংক একাউন্ট খোলার নিয়ম
৪. এক ব্যাংক থেকে অন্য ব্যাংকে টাকা পাঠানোর নিয়ম
ADVERTISEMENT

Similar Posts

2 Comments

  1. আমি অনেক দিন যাবৎ ইসলামি ব্যাংকে লেনদেন করি না . এখন আমি আবার লেনদেন করতে চাই করনীয় কি একটু জানাবেন?

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *