নগদ একাউন্ট লক হলে করনীয় | নগদ একাউন্টের পিন পরিবর্তনের নিয়ম

নগদ একাউন্ট লক হয়ে গেছে? কি করবেন বুঝতে পারছেন না? এই ‍পোস্টিতে নগদ একাউন্ট লক হলে করনীয় কি তা আলোচনা করা হয়েছে।

নগদ একাউন্ট লক হলে করনীয়

মাঝে মাঝে কিছু কারণে Nagad একাউন্ট লক হতে পারে। তবে ভয়ের কিছু নেই। আপনার এই একাউন্টটি নগদ একাউন্ট লক হলে করনীয় বিষয় গুলো মেনে আবার আনলক করে নিতে পারবেন।

এই পোস্টে নগদ একাউন্ট লক হলে করনীয় দিক গুলো নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করা হয়েছে। সেই সাথে যদি আপনি আপনার পিন ভুলে গিয়ে থাকেন তবে নগদ একাউন্টের পিন পরিবর্তনের নিয়ম অনুযায়ি যা করতে হবে তাও নিচে উল্লেখ করা হয়েছে।

যেসব কারণে নগদ একাউন্ট লক হয়

মূলত আপনার একাউন্টের নিরাপত্তার জন্যই আপনার একাউন্ট লক হয়ে থাকে, যখন কোনো নির্দিষ্ট কার্যক্রম নগদ লক্ষ করে। যেমন আপনি যদি আপনার পিন নাম্বার তিন বারের বেশি ভুল সাবমিট করেন, তবে আপনার একাউন্ট লক হয়ে যাবে।

সচরাচর ফ্রড ব্যাক্তিরা বারবার পিন দিয়ে কারো একাউন্টে ঢুকার চেষ্টা করে। তাই একদিক থেকে লক হয়ে যাওয়া কারো একাউন্টের সিকিউরিটির জন্য গুরুত্বপূর্ণও বটে। তবে একাউন্টের মালিক হিসেবে আপনার জন্য হয়তো এটি সমস্যার। আপনি হয়তো পিন ভুলে গেছেন। এর সমাধান করার জন্য আপনাকে যা করতে হবে তা নিচে আলোচনা করা হলো।

নগদ একাউন্ট লক হলে করনীয়

আপনার নগদ একাউন্ট যদি লক হয়ে যায় তবে আপনাকে কাস্টমার কেয়ারে কল করতে হবে। নগদের কাস্টমার কেয়ারে কল করার নাম্বার হলো 16167, যেখানে আপনি আপনার একাউন্ট লক হওয়ার বিষয়ে তাদের জানালে তারা আপনার কাছ থেকে কিছু তথ্য নিয়ে, যেমন আপনার এনআইডি কার্ড নাম্বার বা আপনার লাস্ট লেনদেনের পরিমাণ, ইত্যাদি, জিঙ্গেস করে আপনার একাউন্ট আনলক করে দিবে।

যদি আপনার আগের পিনটি মনে থাকে বা পেয়ে যান, তবে কাস্টমার কেয়ারে কল করে একাউন্ট আনলক করে আপনি তা ব্যবহার করতে পারবেন। কিন্তু যদি আপনার পিন মনে না থাকে বা হারিয়ে ফেলেন, তাহলে আপনার তা রিকভারি করার দরকার হবে। কিভাবে রিকভার করবেন আসুন তা নিচে দেখে নিই।

নগদ একাউন্টের পিন পরিবর্তনের নিয়ম

আপনার একাউন্ট আনলক করার জন্য কাস্টমার কেয়ারে কল করার পর যখন আপনি আনলক করিয়ে নিবেন, তখন তখন তাদের আপনার পিন রিকভার করার বিষয়ে জানাবেন। তারা আপনাকে সাহায্য করবে।

একাউন্ট আনলক বা পিন রিকভার, যাই করুন না কেন, নগদ থেকে আপনার কিছু তথ্য জানতে চাওয়া হবে। তারা আপনার ভোটার আইডি কার্ড নাম্বার, আপনার জন্ম তারিখ, পিতার নাম, বা আপনার লাস্ট লেনদেনের পরিমাণ, ইত্যাদি জানতে চাইতে পারে। এটি আপনার একাউন্টের নিরাপত্তার জন্য গুরুত্বপূর্ণ।

সব ঠিক থাকলে তারা আপনাকে একটি সাময়িক পিন পাঠাবে। এটি দিয়ে আপনি আপনার পিন পরিবর্তন করে নিতে পারবেন। এটি আসার দুই মিনিটের মধ্যে পূনরায় *167# ডায়াল করলে পিনটি বসানোর জন্য একটি অপশন আসবে।

সেখানে পিনটি দেয়ার পর আপনার পিন রিসেট করার জন্য একটি অপশন পেয়ে যাবেন। সেখান থেকে আপনার নিউ পিন দিয়ে আপনার পিন রিসেট সম্পন্ন করতে পারবেন।

এছাড়া আপনি যদি আপনার পিন ভুলে যান, তাহলে আপনি কাস্টমার কেয়ারে কল না করেও আপনার পিন রিকভার করতে পারবেন। কিভাবে? তা জানতে হলে পড়ে নিন নগদ একাউন্টের পিন নাম্বার ভুলে গেলে করণীয় এই পোস্টি।

শেষ কথা

নগদের একাউন্ট সচরাচর তিন বারের বেশি ভুল পিন দেয়ার কারণে লক হয়। আপনার পিন যদি মনে হয় যে ভুলে গিয়েছেন, তবে ভুল পিন দিয়ে চেষ্টা করবেন না। এখানে আপনি যা করতে পারেন, তা হলো আপনার পিনটি রিকাভার করে নিন। এটি আপনি কাস্টমার কেয়ারে কল না করেও করতে পারবেন। কিভাবে তা জানতে উপরের অংশটি পড়ুন।

নগদ সম্পর্কে আরো বিস্তারিত জানতে পড়ুন নগদ একাউন্ট

নগদের অন্যান্য পোস্টগুলো পড়ুন

নগদ টু রকেটনগদ থেকে রকেটে টাকা ট্রান্সফার করার নিয়ম
মালিকানা পরিবর্তননগদ একাউন্টের মালিকানা পরিবর্তন করার নিয়ম
উদ্দ্যোক্তা একাউন্টনগদ উদ্যোক্তা একাউন্ট খোলার নিয়ম
বিদ্যুৎ বিলনগদে বিদ্যুৎ বিল দেওয়ার নিয়ম
ইসলামি একাউন্টনগদ ইসলামিক একাউন্ট খোলার নিয়ম
এড মানিসেলফিন থেকে নগদে এড মানি করার নিয়ম
ট্রান্সফার মানিনগদ থেকে ইসলামী ব্যাংকে টাকা ট্রান্সফার

Similar Posts

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।