ভিসা কার্ড ও মাস্টার কার্ডের পার্থক্য এবং সাদৃশ্য

ভিসা কার্ড ও মাস্টার কার্ডের পার্থক্য গুলো কি কি এবং এদের মধ্যে সাদৃশ্য গুলোই বা কি, এমন প্রশ্ন গুলোর উত্তর পেতে পোস্টটি শেষ পর্যন্ত পড়ুন।

ভিসা কার্ড ও মাস্টার কার্ডের পার্থক্য | Difference between visa and mastercard card

আসলে MasterCard এবং Visa Card অনেকটা একইভাবে কাজ করে। যদি তারা একই ভাবে কাজ করে তবে ভিসা কার্ড ও মাস্টার কার্ডের পার্থক্য কি আসলেই আছে? নাকি এরা দুটোই একই জিনিস?

ভিসা কার্ড ও মাস্টার কার্ডের পার্থক্য তো কিছু ক্ষেত্রে আছেই, তবে বেশিরভাগ ক্ষেত্রে আপনি ভিসা এবং মাস্টারকার্ড এর মিলটাই বেশি খুজে পাবেন। আসুন এর পার্থক্য এবং মিল গুলো দেখে নেয়া যাক।

Table of Contents

ভিসা কার্ড ও মাস্টার কার্ড কী?

Visa এবং Mastercard-এর মধ্যে একমাত্র আসল পার্থক্য হল যে, কার্ডটি যে কোম্পানির পেমেন্ট নেটওয়ার্কে পরিচালিত হয়, শুধু তাতেই কাজ করে। একটি ভিসা কার্ড মাস্টারকার্ডের নেটওয়ার্কে কাজ করবে না এবং মাস্টারকার্ড ভিসা কার্ড নেটওয়ার্কে কাজ করবে না।

আপনি যখন আপনার ক্রেডিট, ডেবিট বা প্রিপেইড কার্ড দিয়ে খরচ করেন, তখন ভিসা এবং মাস্টারকার্ড উভয় কোম্পানিই এই লেনদেন পরিচালনা করে। তারা আপনার, আপনার ব্যাংক এবং একজন খুচরা বিক্রেতার মধ্যে মধ্যস্থতাকারী হিসেবে কাজ করে।

তারা ক্রেডিট বা ডেভিড কার্ড ইস্যু করে না। এগুলো শুধু বিশ্বব্যাপী বিস্ত্রিত দুটি বৃহত্তম কার্ডের নেটওয়ার্ক মাত্র। ভিসা এবং মাস্টারকার্ড এবং অন্যান্য নেটওয়ার্কগুলির মধ্যে মূল পার্থক্যই হচ্ছে কার্ড পেমেন্ট পরিচালনা করা, যেমন আমেরিকান এক্সপ্রেস এবং ডিসকভার, এই কোম্পানি গুলোর মতোই।

ভিসা কার্ড ও মাস্টার কার্ডের পার্থক্য কি?

ভিসা এবং মাস্টারকার্ডের মধ্যে পার্থক্যের চেয়ে অনেক বেশি মিল রয়েছে।

মাস্টারকার্ড এবং ভিসার মধ্যে প্রধান পার্থক্য হল তারা উভয়ই ভিন্ন ভিন্ন সুবিধা বা পুরষ্কার অফার করে, যদিও আপনার কার্ড ইস্যু করা ব্যাংক আপনার সুবিধা উপভোগ করার উপর বিশেষ প্রভাব রাখবে।

ভিসা এবং মাস্টারকার্ডের বিভিন্ন নিরাপত্তা স্কিম আছে।

যেমন মাস্টারকার্ড মূল্য সুরক্ষা প্রদান করে। আপনি যদি আপনার মাস্টারকার্ডে কোনো পন্যের জন্য অর্থ পরিষোধ করেন এবং তারপরে ৬০ দিনের মধ্যে পন্যের মূল্য হ্রাস করা হয়, তবে মাস্টারকার্ড সাধারণত আপনাকে অতিরিক্ত টাকা ফেরত দেবে। কিন্তু বেশিরভাগ ক্ষেত্রে না থাকলেও আবার কিছু কিছু ভিসা কার্ড প্রদানকারীর একই মূল্য সুরক্ষা নীতি থাকে।

যেহেতু তারা প্রায় একই রকম, তাই আপনি যখন একটি বেছে নিচ্ছেন তখন ভিসা এবং মাস্টারকার্ডের মধ্যে পার্থক্যের উপর খুব বেশি ফোকাস না করাই ভালো। আপনার নিজের ব্যক্তিগত পরিস্থিতি এবং জীবনধারার জন্য সঠিক কার্ড খুঁজে বের করাই ভালো। এটি অফারের হারের উপর ভিত্তি করে হতে পারে, বা সুবিধার উপর ভিত্তি করে হতে পারে।

কোথায় ব্যবহার করা যাবে তার পরিপ্রেক্ষিতে কোনো পার্থক্য আছে কি?

ভিসা এবং মাস্টারকার্ডের মধ্যে খুব কমই কোনো পার্থক্য থাকে, যেখানটা এখানেও দেখা যায়। ভিসা এবং মাস্টারকার্ড উভয়ই বিশ্বব্যাপী প্রায় যেকোনো জায়গায় ব্যবহার করা যেতে পারে, হয় সেটা অনলাইনে অথবা অফলাইনে।

এটা খুব কমই হয় যে, একজন বিক্রেতা এই দুটি কার্ডের মধ্যে একটি গ্রহণ করছে কিন্তু আরেকটি করছে না। তাই এই কার্ড কোথায় ব্যবহার হবে কোথায় হবে না এই বিষয় নিয়ে খুব একটা চিন্তা করার কিছু নেই।

তবে বিষয়টি যদি হয় অন্য কোনো কার্ড নিয়ে, যেমন: আমেরিকান এক্সপ্রেস, তাহলে হয়তো আপনার এটি কোথায় ব্যবহার হবে কোথায় হবে না তা নিয়ে চিন্তা করতে হবে। কারণ, এর ট্রান্জেকশন ফি তুলনামূলক বেশি। আবার এটি সব জায়াগায় এভেইলএবল নয়। অনেক বিক্রেতা এটি গ্রহণও করতে চাইবে না।

ভিসা এবং মাস্টারকার্ডের অনলাইন প্রোটেকশনে কোনো পার্থক্য আছে কি?

ভিসা এবং মাস্টারকার্ডের অনলাইন প্রোটেকশনে পার্থক্য আছে। যদিও তাদের নিজস্ব অনলাইন সুরক্ষা স্কিমের মাধ্যমে অনলাইনে কেনাকাটা সুরক্ষা প্রদান করে। আর এটি আপনাকে অনলাইনে প্রতারণা থেকে রক্ষা করার জন্য।

এখানে মাস্টারকার্ড সুরক্ষিত কোড নামে একটি সুরক্ষা স্কিম ব্যবহার করে এবং ভিসা “ভেরিফাইড বাই ভিসা” নামে একটি অনুরূপ সিস্টেম ব্যবহার করে। তারা ব্যবহার করে তাদের নিজস্ব সিস্টেম, কিন্তু উভয়ের উদ্দেশ্য এবং কাজ একই।

ভিসা এবং মাস্টারকার্ড কার্ডের কি কি মিল আছে?

ভিসা এবং মাস্টারকার্ড উভয়ই কার্ড নেটওয়ার্ক। এর মানে তারা পেমেন্ট নেটওয়ার্কগুলি পরিচালনা করে। কিন্তু তারা আসলে গ্রাহকদের কার্ডগুলি অনুমোদন বা ইস্যু করে না। যখন কেউ একটি ভিসা বা মাস্টার ক্রেডিট কার্ড পায়, সে এটি সাধারণত একটি ব্যাংক থেকে সংগ্রহ করে।

ভিসা এবং মাস্টারকার্ড যেভাবে কাজ করে তার একটি সুবিধা হল যে তারা অন্যান্য ক্রেডিট কার্ড কোম্পানির তুলনায় অনেক বেশি গ্রহণযোগ্যতা তৈরি করতে সক্ষম। ভিসার প্রায় ২৮ মিলিয়ন ইউজার আছে। অন্যদিকে মাস্টারকার্ডের আছে প্রায় ৩০ মিলিয়ন ইউজার।

এটি খুব একটা দেখা যায় না যে, সার্ভিস নেয়ার সময় পে করতে কার্ডের একটি ধরন এক্সেপ্ট হয়েছে যখন অন্যটি এক্সেপ্ট করা হচ্ছে না। যে কোনো জায়গায় ডিসকভার বা আমেরিকান এক্সপ্রেস এর কার্ড গুলো এক্সেপ্ট করুক বা না করুক ভিসা এবং মাস্টারকার্ড গ্রহণ করেন এমন ব্যবসায়ীকে খুঁজে পাওয়ার সম্ভাবনা অনেক বেশি।

ভিসা এবং মাস্টারকার্ড কি কোনো সুবিধা দেয়?

ভিসা এবং মাস্টারকার্ড উভয়ই কিছু ডিল তাদের ডেবিট, ক্রেডিট বা প্রিপেইড কার্ড ব্যবহারকারীদের জন্য অফার করে। উভয়েরই বেসিক থেকে প্রিমিয়াম পর্যন্ত তিন-স্তরীয় সুবিধা রয়েছে।

তবে এই অফার সবাইকে সুট নাও করতে পারে। এর কারণ হল প্রতিটি কার্ড ইস্যুকারী কার্ডধারীদের জন্য এই সুবিধাগুলি নির্ধারণ করে, কোনটা তারা ব্যবহার করতে পারবে আর কোনটা পারবে না। এই কারণে, পেমেন্ট নেটওয়ার্কগুলির তুলনা করার পরিবর্তে এটা উত্তম যে আপনি একটা ভালো কার্ড ইসুকারী বাছাই করুন৷

ডেভিড কার্ড ও ক্রেডিট কার্ডের মধ্যে পার্থক্য

কার্ড গুলোর বেসিক সুবিধা

উভয়ই কিছু বেসিক সুবিধা দিয়ে থাকে। যেমন:

  • জরুরী সহায়তা করা
  • জরুরী কার্ড রিপ্লেসমেন্ট
  • ক্রয় ওয়্যারেন্টি বাড়ানো

ভিসাতে আপনি আনঅথরাইজড পার্চেস কাভারেজ পাবেন। MasterCard-এ আপনি ফ্রড লায়াবিলিটি প্রটেকশন পাবেন৷

কার্ড গুলোর মিড রেঞ্জ সুবিধা

ভিসা কার্ড মিড-রেঞ্জ প্যাকেজে পাবেন:

  • অনলাইন কেনাকাটার মাধ্যমে ডিসকাউন্ট
  • বিনোদন, ডাইনিং, ভ্রমণ ইভেন্টের ডিল
  • ২৪/৭ আঞ্চলিক পরিষেবা।

মাস্টার কার্ড মিড-রেঞ্জ প্যাকেজে পাবেন:

  • ১২০ দিনের মূল্য সুরক্ষা
  • ব্যক্তিগত ভ্রমণ পরামর্শদাতা
  • নির্দিষ্ট হোটেলে কিছু সুবিধা

কার্ড গুলোর প্রিমিয়াম সুবিধা

এখানে কার্ডগুলোর বেসিক এবং মিড রেঞ্জ সুবিধা তো থাকেই, তার সাথে সাথে এই প্রিমিয়াম অপশনে থাকে আরো কিছু বিশেষ সুবিধা। কারণ এটি বিশেষ কিছু মানুষকে টার্গেট করে, যারা ধনি শ্রেণির হয়ে থাকে। এসব কার্ডে এক্সট্রা সুবিধা পাওয়া যায় যেমন, কম বিমান ভাড়া, বিমানবন্দর লঞ্জগুলিতে অ্যাক্সেস ইত্যাদি।

ক্রেডিট কার্ডের সুবিধা এবং অসুবিধা

ভিসা কার্ড ও মাস্টার কার্ডের আরো কিছু সুবিধা

#১. কার্ডে রিওয়ার্ড প্রোগ্রাম: মাস্টারকার্ড এবং ভিসা উভয়ই ব্যাংকের সাথে কাজ করে এবং কার্ডে রিওয়ার্ড প্রদান করে। এর মধ্যে অন্তর্ভুক্ত আছে:

  • ট্রেভেল রিওয়ার্ড, যেমন হোটেলে থাকা, বিমান ভাড়া, ডাইনিং ইত্যাদিতে পয়েন্ট এবং ডিসকাউন্ট পাওয়ার সুযোগ।
  • নির্দিষ্ট কিছু স্টোরে কেনাকাটা করলে রিওয়ার্ড এবং ডিকাউন্ট, যেমন সুপারস্টোর গুলোতে।
  • কিছু ক্ষেত্রে ক্যাশ ব্যাক অফার।

আপনার কার্ডের মাধ্যমে আপনি যে ধরনের রিওয়ার্ডই পাবেন তা নির্ভর করে কার্ড প্রোগ্রামের উপর, যা ব্যাংকগুলি অফার করে এবং এর সাথে ভিসা এবং মাস্টারকার্ড এই অপশন গুলো যুক্ত থাকে৷

#২. অ্যাপল এবং গুগল পে তে ব্যবহাররের সুবিধা: বেশিরভাগ মাস্টারকার্ড এবং ভিসা ক্রেডিট কার্ড স্মার্ট ওয়ালেট গুলির সাথে কাজ করে, যেমন Apple Pay বা Google Pay তে। এটি ক্রেডিট কার্ড হোল্ডারদের জন্য ভাল খবর, বিশেষ করে যারা কার্ড সোয়াইপ করার সময় নিরাপত্তা ঝুঁকি নিয়ে চিন্তিত৷

#৩. ক্রেডিট কার্ড হোল্ডার ডিসকাউন্ট প্রোগ্রাম: আপনি যদি একটি ব্যবসায়িক ক্রেডিট কার্ড ব্যবহার করেন, তাহলে আপনি বিভিন্ন কেনাকাটায় অর্থ সঞ্চয় করার সুযোগ পাবেন। Visa তার Visa SavingsEdge প্রোগ্রামের আন্ডারে তাদের কার্ডধারীদের বিভিন্ন কেনাকাটায় তারা অফার হিসেবে কিছু ক্যাশ ব্যাক করে।

মাস্টার কার্ডেও সুপারশপ, হোটেল ইত্যাদিতে কেনাকাটায় বা সার্ভিস গ্রহণে থাকে বিশেষ ছাড় বা ক্যাশ ব্যাক অফার, যেমনটা ভিসা কার্ডে থাকে।

নিজের ইচ্ছে মতো একটি কার্ড পছন্দ করা যায় কি?

ব্যাংকগুলি সচরাচর মাস্টারকার্ড এবং ভিসা উভয়ের সাথে কাজ করে। তাই আপনি একটি নির্দিষ্ট কার্ডের জন্য কার্ড প্রোভাইডার কোম্পানির সাথে যোগাযোগ করতে পারেন৷

আমার কোন কার্ডটি নেয়া উচিত হবে?

ভিসা এবং মাস্টারকার্ড বিভিন্ন ধরনের প্রিপেইড, ক্রেডিট এবং ডেবিট কার্ড অফার করে। ক্রেডিট কার্ড প্রদানকারীর উপর নির্ভর করে শর্তাবলী এবং সুবিধাগুলি পরিবর্তিত হয়। সচরাচর কার্ড ইস্যুকারী হয় ব্যাংক। তারাই সাধারণত কার্ডধারক যে সুবিধাগুলি পাবেন তা নির্ধারণ করে।

তাই আপনার জন্য সেরা কার্ডটি নিতে পেমেন্ট নেটওয়ার্কের উপর ফোকাস করার থেকে আপনার নির্দিষ্ট প্রয়োজনীয়তার উপর বেশি ফোকাস করা প্রয়োজন। ইস্যুকারীরা কোন কোন সুবিধাগুলি দিচ্ছে তা দেখা আপনার জন্য গুরুত্বপূর্ণ।

সুবিধাগুলোর তুলনা করে আপনি এমন একটি কার্ড খুঁজে পেতে পারেন যা আপনার অর্থ সাশ্রয় করবে। সেই সাথে ক্যাশব্যাকের মতো বিভিন্ন ধরনের রিওয়ার্ডও অফার করে।

ভিসা কার্ড বা মাস্টার কার্ড করার উপায় কি?

এটি পাওয়ার জন্য আপনাকে ব্যাংকে আবেদন করতে হবে। আপনার ব্যাংক আপনার কিছু ডকুমেন্ট চাইবে যা ব্যাংকে সাবমিট করতে হবে। তবে ব্যাংকের সাথে যোগাযোগ করলে ব্যাংক অন্য কিছুর প্রয়োজন হলে বলবে। এগুলো সাবমিট করে আপনার কার্ড সংগ্রহ করতে পারবেন। আরো পড়তে পারেন ভিসা ক্রেডিট কার্ড নেয়ার নিয়ম

ডুয়েল কারেন্সি কার্ড এবং তা পাওয়ার নিয়ম

কার্ড নিয়ে আরো কিছু গুরুত্বপূর্ণ পোস্ট পড়ুন

১. ১২টি কাজ যা আপনার ক্রেডিট কার্ড দিয়ে করা উচিত নয়
২. জেনে নিন কোন ব্যাংকের ক্রেডিট কার্ড ভালো
৩. ডাচ বাংলা ব্যাংক ক্রেডিট কার্ড সুবিধা
৪. সুদমুক্ত ইসলামী ব্যাংক খিদমাহ ক্রেডিট কার্ড ফিচার

Similar Posts

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না।