জেনে নিন কোন ব্যাংকের ক্রেডিট কার্ড ভালো

এই পোস্ট আপনাকে সাহায্য করবে কোন ব্যাংকের ক্রেডিট কার্ড ভালো তা বুঝতে এবং বাছাই করতে।

কোন ব্যাংকের ক্রেডিট কার্ড ভালো

”Credit Card” দিনে দিনে বিশ্বব্যাপি একটি জনপ্রিয় লেনদেনের মাধ্যম হিসেবে পরিণত হচ্ছে। এটি এমন একটি বিশেষ ধরনের প্লাস্টিক কার্ড যা ব্যাংক তাদের গ্রাহকদের প্রয়োজন অনুযায়ি ইস্যু করে থাকে। গ্রাহক এই কার্ড ব্যবহার করে কেনাকাটা, ভ্রমণ, হোটেল বুকিং সুবিধা সহ আরো অনেক কিছু করতে ও পেতে পারেন।

এই ক্রেডিট কার্ডের সুবিধা গুলো পর্যায়ক্রমে নগদ লেনদেনের পরিমাণকে কমিয়ে দিচ্ছে। এর ফলে নগদ বহণের যে ঝুকি তা অনেক আংশে কমে যাচ্ছে। লেনদেন হয়ে যাচ্ছে আরো সহজ এবং আরো দ্রুত। যা শুধু দেশের মধ্যে সিমাবদ্ধ থাকছে না। অর্থ লেনদেন হচ্ছে বিশ্ব ব্যাপি কার্ডের মাধ্যমেই।

অন্যান্য দেশের মতো বাংলাদেশেও Credit Card খুবই জনপ্রিয়। কম বেশি প্রায় সব ব্যাংকই ক্রেডিট কার্ড ইস্যু করে থাকে। এখানে আপনি হয়তো এমনই কোনো এক ব্যাংকের ক্রেডিট কার্ড নিবেন বলে ভাবছেন। কিন্তু বুঝতে পারছেন না যে কোন ব্যাংকের ক্রেডিট কার্ড ভালো

আজকের এই পোস্টে আমি আলোচনা করবো কোন ব্যাংকের ক্রেডিট কার্ড ভালো তা নিয়ে। কিন্তু তার আগে কিছু সাধারণ বিষয় মাথায় রাখতে হবে যা আপনাকে আপনার প্রয়োজনিয় ক্রেডিট কার্ডটি খুজে পেতে সাহায্য করবে, যা হবে আপনার জন্য এফোর্ডেবল এবং সর্বোচ্চ ইউজফুল। চলুন তা দেখে নেয়া যাক।

বেস্ট ক্রেডিট কার্ডটি বাছাই করুন

যদি আপনি ক্রেডিট কার্ড নেয়ার কথা ভাবেন তবে আপনার জন্য হয়তো প্রচুর অপশন খোলা আছে। আলাদা আলাদা ক্রেডিট কার্ডের আলাদা আলাদা সুবিধা। তাই এটা খুবই কঠিন যে কোনো একটি ক্রেডিট কার্ডকে বেস্ট হিসেবে চয়েস করা। আপনার প্রয়োজন বা আপনার লাইফস্টাইল বলে দিবে আপনার জন্য কোন ক্রেডিট কার্ডটি দরকার।

তাই আপনার কার্ডটি সংগ্রহ করার আগে আপনাকে কিছু বিষয় আগে ভাবতে হবে। যদি তা না করেন তবে হয়তো বেস্ট ক্রেডিট কার্ডটি আপনার পাওয়া হবে না। এখন আসুন দেখি কি কি বিষয় আপনার ভাবা উচিত আপনার ক্রেডিট কার্ডটি সংগ্রহ করার আগে।

যেভাবে বাছাই করবেন কোন ব্যাংকের ক্রেডিট কার্ড ভালো

এখানে আমি চারটি নিয়মের কথা বলবো যা ফলো করে আপনি আপনার প্রয়োজন অনুযায়ি Credit Card বাছাই করতে পারবেন। ক্রেডিট কার্ড বাছাই হয়ে গেলে আপনি উক্ত ব্যাংকের শাখায় ভিজিট করে কার্ড সংগ্রহ করতে পারবেন, অথবা তাদের ইন্টারনেট ব্যাংকিং থাকলে তার মাধ্যমেও আপনি কার্ডের জন্য এপ্লাই করতে পারবেন।

#আপনার ক্রেডিট কার্ড নেয়ার কারণ বের করুন: আপনার ক্রেডিট কার্ড নেয়ার পেছনে নিশ্চই কোনো কারণ আছে। সেই কারণটি প্রথমে খুজে নিন। হতে পারে আপনার ক্রেডিট কার্ড নেয়ার কারণ অনলাইনে শপিং করা বা কেনাকাটার ক্ষেত্রে লেনদেন আরো সহজ করা অথবা ভ্রমনও একটি কারণ হতে পারে।

#আপনার কারণের সাথে সংগতিপূর্ণ ক্রেডিট কার্ডের লিস্ট করুন: এমন অনেক ক্রেডিট কার্ড প্রোভাইডার আছে যারা কোনো নির্দিষ্ট খরচের উপর বিভিন্ন সুবিধা অফার করে থাকে। যেমন ধরুন সুপারস্টোর থেকে কেনাকাটা করলে ক্রেডিট কার্ডধারী গ্রাহকদের প্রায় ডিসকাউন্ট দেয়া হয়।

আবার ট্রাভেল পেকেজে ক্রেডিট কার্ড থেকে পে করলে থাকে আকর্ষণীয় সব ছাড়। তাই ক্রেডিট কার্ড বাছাই করার সময় আপনার পারপাসকে গুরুত্ব দিন। দেখুন কোন কোন ক্রেডিট কার্ড আপনার প্রয়োজনের উপর বিশেষ অফার দিচ্ছে। সে অনুযায়ি একটি লিস্ট করে ফেলুন।

#আপনার ক্রেডিট কার্ড নেয়ার যোগ্যতা দেখে লিস্ট সর্ট করুন: ব্যাংক তাদের গ্রাহকদের ক্রেডিট কার্ড দেয়ার আগে তাদের যোগ্যতা যাচাই করে। ‍গ্রাহকের প্রফেশন দেখা হয়, তার স্যালারি দেখা হয় এবং দেখা হয় আরো বেশ কিছু বিষয়। বিশেষ করে আপনার কার্ড লিমিট ঠিক করার জন্য ব্যাংকের এই ইনফর্মেশন দরকার হবে।

তাই একটি ক্রেডিট কার্ড পাওয়ার জন্য ঐ ক্রেডিট কার্ড পাওয়ার যোগ্যতা ফুলফিল করতে পারছেন কিনা তা দেখুন।আজকাল কমবেশি সব ব্যাংক তাদের ওয়েবসাইট তৈরি করেছে। আপনি হয়তো তাদের ক্রেডিট কার্ডের জন্য কি কি যোগ্যতা থাকতে হবে তা অনলাইনেই জানতে পারবেন।

জেনে আপনার লিস্টে আপনার জন্য এলিজেবল কার্ড গুলো বাছাই করুন। অন্য গুলো বাদ দিয়ে দিন।

#লিস্টের সেরা কার্ডটি বেঁছে নিন: আপনার লিস্ট করা যদি সম্পন্ন হয় তাহলে এখন আপনার লিস্টে থাকা সমস্ত কার্ড গুলির মধ্যে সেরা কার্ড কোনটি তা বাছাই করে নিন। এর অফার, বাৎসরিক চার্জ, ইন্টারেস্ট রেট এবং আরো যেসকল হিডেন চার্জ আছে তা পর্যালোচনা বা পার্থক্য করে দেখে নিন কোন কার্ডটি আপনার জন্য সেরা।

ক্রেডিট কার্ড নেয়ার আগে আরো যা জানা দরকার, এখানে পড়ুন।

বাংলাদেশে শীর্ষ কয়েকটি ক্রেডিট কার্ড

যেমনটা বলেছি, একটি বেস্ট ক্রেডিট কার্ড বাছাই করা মটেও সহজ কাজ নয়। এটি মূলত নির্ভর করে আপনার উপর। আপনি যদি বেস্ট একটি ক্রেডিট কার্ড বাছাই করতে চান তবে আপনাকে উপরের প্রসেস গুলো অনুসরণ করতে হবে।

এখানে আমি কয়েকটি ক্রেডিট কার্ডের কথা বলবো যে ক্রেডিট কার্ড গুলো বাংলাদেশে শীর্ষ ক্রেডিট কার্ড গুলোর মধ্যে কয়েকটি। তবে এ কার্ড গুলো হয়তো আপনার লাইফস্টাইলের সাথে বেস্ট কার্ড নাও হতে পারে। চলুন সেগুলো নিচে দেখে নেয়া যাক।

#EBL Credit Card: যারা ভ্রমণ করতে পছন্দ করেন বা রেগুলার ভ্রমণ করে থাকেন তাদের জন্য ইস্টার্ণ ব্যাংক ক্রেডিট কার্ড একটি ভালো অপশন হতে পারে। আপনি তাদের EBL SKYLOUNGE ব্যবহার করতে পারেন বিদেশ ভ্রমণের ক্ষেত্রে। তবে এর জন্য আপনাকে একজন প্লাটিনাম কার্ড হোল্ডার হতে হবে।

এখানে আপনি পাবেন APR রেট 27.00%, 45 দিনের একটি গ্রেস পিরিওড। এছাড়া থাকছে Installment facilities,
Supplementary Card সুবিধা, এবং Renewal একদম ফ্রি ( যদি বছরে আঠারোটি লেনদেন করে থাকেন)।

#DBBL Credit Card: ডাচ বাংলা ব্যাংক বাংলাদেশে প্রথম ব্যাংকিংয়ে পুরোপুরি অটোমেটেড সিস্টেম চালু করেছে। পুরো দেশে এর একটি বিশাল ব্যাপ্তি রয়েছে, এমনকি দূর্গম এরিয়া গুলোতেও তাদের সেবা পাওয়া যায়। ক্রেডিট কার্ডের ক্ষেত্রেও তারা অনেক অফার দিয়ে থাকে।

এখানে আপনি পাবেন APR রেট 15.00%, 50 দিনের একটি গ্রেস পিরিওড। এছাড়া থাকছে ফ্রি Supplementary Card সুবিধা, এবং Renewal -ও একদম ফ্রি।

ডাচ বাংলা ব্যাংক ক্রেডিট কার্ড সম্পর্কে জানুন।

#City Bank Amex Credit Card: এই ব্যাংক সবসময় তাদের গ্রাহকদের নতুন কিছু দেয়ার চেষ্টা করে। খুব কমই ব্যাংক আছে যারা তাদের গ্রাহকদের এই এমেক্স কার্ডটি ইস্যু করে থাকে। এই কার্ডটির মাধ্যমে ব্যাংক তাদের গ্রাহকদের বিভিন্ন রকম সুবিধা দিয়ে থাকে।

এখানে আপনি পাবেন APR রেট 27.00%, 45 দিনের একটি গ্রেস পিরিওড। এছাড়া থাকছে ফ্রি Supplementary Card সুবিধা, এবং Renewal -ও একদম ফ্রি।

#MTB Credit Card: মিউচুয়াল ট্রাস্ট ব্যাংক বর্তমানে এই দেশে মুটামুটি একটি সফল ব্যাংক। তারাও তাদের গ্রাহকদের ক্রেডিট কার্ডে অনেক সুযোগ সুবিধা দিচ্ছে।

এখানে আপনি পাবেন APR রেট 25.00% বা তার একটু বেশি, 45 দিনের একটি গ্রেস পিরিওড। এছাড়া থাকছে ফ্রি Supplementary Card সুবিধা। তবে এর Renewal ফি ১০০০/- থেকে ১০,০০০/- টাকা পর্যন্ত হয়ে থাকে।

শরিয়া ভিত্তিক ক্রেডিট কার্ড

অনেকে আছে যারা প্রচলিত ব্যাংকিং ব্যবস্থার সাথে যুক্ত হতে চান না, যেহেতু এই সকল ব্যাংকে সুদের কাজ চলে তাই। তারা হয়তো শরিয়া ভিত্তিক কোনো ব্যাংক এবং তাদের ক্রেডিট কার্ড সম্পর্কে জানতে আগ্রহি বা তাদের ক্রেডিট কার্ড নিতে চান।

বাংলাদেশে কয়েকটি ইসলামী শরীয়া ভিত্তিক ব্যাংক আছে যারা একটি শরিয়া বোর্ডের মাধ্যমে তাদের কার্যক্রম পরিচালনা করে। যদিও তাদের পুরো কার্যক্রমকে একেবারে সুদ মুক্ত বলা যায় না। কিন্তু তাদের শরীয়া বোর্ড যেহেতু অনেক ক্ষেত্রে সচ্ছতা আনার চেষ্টা করছে তাই এই সিস্টেমকে অন্য সব সিস্টেমের উপর প্রাধান্য দেয়াই যায়।

#ইসলামী ব্যাংকের ক্রেডিট কার্ড

এমনই একটি ব্যাংক যারা শরীয়া ভিত্তিক ব্যাংকিং পরিচালনা করে থাকে তারা হলো “ইসলামী ব্যাংক”। এই ব্যাংকের একটি কার্ড আছে, নাম হলো “ইসলামী ব্যাংক খিদমাহ ক্রেডিট কার্ড“। এটি শরিয়া ভিত্তিক একটি ক্রেডিট কার্ড। যারা অন্য ক্রেডিট কার্ড নেয়ার ব্যাপারে দ্বিধাদন্দে আছেন তাদের জন্য এটি একটি ভালো উপায় হতে পারে।

শেষকথা

এখানে মূলত আপনার ক্রেডিট কার্ড বাছাই করার নিয়ম বলা হয়েছে। আর কিছু কার্ড রেকমেন্ড করা হয়েছে, তবে তা আপনার লাইফস্টাইলের সাথে যথাযথ নাও হতে পারে। তাই ক্রেডিট কার্ড নেয়ার আগে আপনার সবকিছু পর্যালোচনা করে নিন। এতে করে আপনি একটি ভালো ক্রেডিট কার্ড খুজে পাবেন যা আপনার জন্য সুবিধাজনক হবে।

এই পোস্টের মতো ক্রেডিট কার্ডের আরো গুরুত্বপূর্ণ সকল তথ্য পেতে ভিজিট করতে পারেন “ক্রেডিট কার্ড”এই লিংকে।

ডেভিড কার্ড ও ক্রেডিট কার্ডের মধ্যে পার্থক্য

Similar Posts

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না।