সহজে সোনালী ব্যাংকের চেক লেখার নিয়ম ছবি সহ

আপনি কি সোনালী ব্যাংকের চেক লেখার নিয়ম খুজছেন? আশা করি আপনি আপনার পুরো সমস্যার সমাধান এখানে পেয়ে যাবেন।

সোনালী ব্যাংকের চেক লেখার নিয়ম

ব্যাংকের চেক লেখার নিয়ম মূল চেক লেখার আগে জেনে নেয়া ভালো। কেননা চেক লিখার সময় অনেক সময় বুঝতে না পারায় কাটা ছেড়া হয়ে যায়। ব্যাংক চেকে কাটা ছেড়া করা মটেও উচিৎ নয়।

আপনি যেন সহজে সোনালী ব্যাংকের চেক লেখার নিয়ম টি বুঝতে পারেন তাই এখানে বিস্তারিত আলোচনা করা হয়েছে। এখানে চেকের ছবি সহ ব্যবহার করা হয়েছে এবং তা পূরণ করে দেখানো হয়েছে। তবে চেষ্টা করা হবে যেন একটি ভিডিও সংযুক্ত করে দেয়া যায়। চলুন তাহলে শুরু করা যাক।

চেক লেখার আগে প্রয়োজনিয় সতর্কতা

  • লেখার জন্য সুবিধাজনক জায়গায় চলে যান।
  • চেক লেখার ক্ষেত্রে বাংলা বা ইংরেজি যেকোনো একটি ভাষা ব্যবহার করুন।
  • লিখার আগে কি লিখবেন ঠিক করে নিন।
  • কাটা ছেড়া করবেন না।
  • যদি কাটা ছেড়া হয়ে যায় তবে চেষ্টা করবেন একটানে তা কেটে আশে পাশে সুন্দর করে লিখতে।
  • প্রয়োজনে কমা ব্যবহার করুন।

সোনালী ব্যাংকের চেক লেখার নিয়ম

আপনার সোনালী ব্যাংকের একাউন্ট থেকে যদি টাকা তোলার দরকার হয় তবে চেক লেখার ক্ষেত্রে যেভাবে লিখবেন তা নিচে বিস্তারিত তুলে ধরা হলো।

সোনালী ব্যাংকের চেক লেখার নিয়ম

গ্রাহকের অংশ

এই অংশটুকু গ্রাহকের কাছে থাকা চেক বুকের সাথে থেকে যাবে। গ্রাহক যদি এটি এটি নাও লিখে তাও কোনো সমস্যা নাই। তবে এখানে লিখে রাখার মাধ্যমে গ্রাহকের টাকা তোলার তথ্য সংরক্ষণ থাকে, যা পরে প্রয়োজনে বা হিসাবের ক্ষেত্রে ব্যবহার করা যায়। এখানে গ্রাহক একাউন্ট নাম্বার, তারিখ, টাকা প্রাপ্তার নাম এবং টাকার পরিমাণ লিখতে পারে।

ব্যাংকের অংশ (মূল চেক)

#Date

ডান দিকে উপরে Date লিখা অংশে আপনি যে তারিখে টাকা ‍তুলছেন, সেই তারিখটি উল্লেখ করুন। তারিখ আপনি চাইলে বাংলা বা ইংলিশে, যে কোনো একটি ভাষায় লিখুন, যে ভাষায় আপনি পুরো চেকটি লিখবেন।

#Pay to

এই চেকের উল্লেখিত টাকা প্রাপ্তা কে? এটা কি আপনি, নাকি অন্য কেউ আপনার হয়ে টাকা তুলবে? এখানে সেটাই উল্লেখ করুন। আপনি নিজে হলে নিজ লিখুন। আর অন্য কেউ হলে তার নাম লিখুন। ধরুন আপনার পক্ষে রহিম মিয়া টাকা তুলতে গেলে এখানে লিখুন ”রহিম মিয়া”।

#TAKA

টাকা লেখা অংশে আপনাকে আপনার টাকার পরিমাণ কথায় লিখতে হবে। যদি আপনি ৫০,০০০/- হাজার টাকা তুলতে চান তবে লিখুন পঞ্চাশ হাজার টাকা মাত্র, বা অন্য কোনো এমাউন্ট হলে তা লিখুন।

#TK

চেকের নিচের দিকে সংক্ষেপে TK লিখা দেখতে পাবেন। এখানে আপনাকে আপনার টাকার পরিমাণ অংকে লিখতে হবে। যেমন ধরুন ৫০,০০০ হাজার টাকা হলে ৫০,০০০ লিখে শেষে /- এই চিন্হ দিয়ে দিবেন।

#Signature

সবশেষে হচ্ছে একাউন্ট হোল্ডারের সিগনেচার। একাউন্ট হোল্ডার এখানে একটি সিগনেচার করবেন, সেই সাথে চেকের অপর পেজে আরো দুটি সিগনেচার করবেন, সাথে মোবাইল নাম্বার লিখে দিবেন।

যদি টাকা প্রাপ্তা একাউন্ট হোল্ডার ব্যাতিত অন্য কেউ হয়, তবে একাউন্ট হোল্ডার যেভাবে অপর পেজে দুটি সিগনেচার করবে, সেভাবে টাকা প্রাপ্তাকেও দুটি ‍সিগনেচার দিতে হবে।

ব্যাংকের অংশ (টোকেন)

টোকেন অংশে প্রথমে বক্সে ব্যাংক একাউন্ট, এর নিচে অংকে টাকার এমাউন্ট, তার নিচে তারিখ দিতে হবে। এছাড়া আর কিছু লিখতে হয় না। এই টোকেন দিয়েই আপনাকে আপনার টাকা বুঝিয়ে দেয়া হবে।

ইংরেজিতে চেক লেখার নিয়ম

উপরে বাংলায় লিখে দেখিয়েছি। কিন্তু আপনি চাইলে চেক ইংরেজিতেও লিখতে পারবেন। Date দিবেন ইংলিশে, যেমন: 10.01.23 এভাবে। তারপর Pay to দিবেন ‍Self, যদি নিজে হন, আর অন্যকেউ হলে Rohim Rohman বা তার যে নাম।

এরপর টাকার এমাউন্ট কথায় এবং অংকে এভাবে: Fifty Thousand taka only এবং 50,000/- এভাবে লিখতে হবে। সিগনেচারের বেলায় আপনার সিগনেচার দিবেন, ব্যাস হয়ে গেল।

শেষকথা

চেক লেখার আগে উপরে উল্লেখিত সতর্কতা গুলো মেনে চলবেন। চেকের মধ্যে থাকা গ্রাহকের অংশ আপনি লিখুন বা না লিখুন কোনো সমস্যা নাই। তবে লিখাটা ভালো। ব্যাংকের অংশের মূল চেক এবং টোকেন, এগুলো সতর্কতার সহিত পূরণ করুন, যেন ভূল না হয়ে যায়।

কোথাও ভুল হলে সেখানে বার বার কলম ঘষার চেষ্টা করবেন না। চেষ্টা করুন একটানে কেটে আশে পাশে তা লিখে দিতে। সবচেয়ে ভালো হয় প্রথমেই সব ঠিক করে ফেলুন কোথায় কি লিখবেন। এতে করে ভুল হওয়ার সম্ভাবনা কমে যায়। আর টাকার এমাউন্ট অংকে লিখলে কমা দিতে ভুলবেন না।

এভাবে সহজে আপনি আপনার টাকা তুলতে পারবেন সোনালী ব্যাংক থেকে। আর হ্যাঁ, বিদেশ থেকে সোনালী ব্যাংকে টাকা পাঠলে তাও তুলতে পারবেন। আরর আপনি কি জানেন সোনালী ব্যাংক অনলাইন ব্যাংকিং সেবা দিয়ে থাকে? এখানে আপনি আপনার একাউন্টে ঘরে বসে দেখতে পারবেন কতো টাকা আছে সর্বোমোট তোলার জন্য।

হোম পেজে যেতে ক্লিক করুন bankline এ।

Similar Posts

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।