চেক ডিজঅনার মামলার শাস্তি

ADVERTISEMENT এই মামলার শাস্তি ইচ্ছাকৃতভাবে চেকের অসম্মান করার জন্য দোষী সাব্যস্ত হলে ড্রয়ারকে জরিমানা এবং কারাদণ্ড সহ আইনি পরিণতির মুখোমুখি হতে পারে। চেক ডিজঅনার মামলার নতুন নিয়ম সাম্প্রতিক বছরগুলোতে, বাংলাদেশ…

ADVERTISEMENT
চেক লেখার ক্ষেত্রে সতর্কতা

ADVERTISEMENT

এই মামলার শাস্তি

ইচ্ছাকৃতভাবে চেকের অসম্মান করার জন্য দোষী সাব্যস্ত হলে ড্রয়ারকে জরিমানা এবং কারাদণ্ড সহ আইনি পরিণতির মুখোমুখি হতে পারে।

চেক ডিজঅনার মামলার নতুন নিয়ম

সাম্প্রতিক বছরগুলোতে, বাংলাদেশ সরকার চেক ডিজঅনারের ক্ষেত্রে বেশ কিছু নতুন নিয়ম প্রয়োগ করেছে। এই নিয়মগুলি হল এই মামলাগুলির নিষ্পত্তির প্রক্রিয়াকে দ্রুততর করার জন্য এবং ড্রয়ার বা চেক দাতাদের শাস্তি থেকে বাঁচার প্রকৃয়া আরও কঠিন করার জন্য ডিজাইন করা হয়েছে৷

ADVERTISEMENT

মূল পরিবর্তন

এখানে চেক ডিজঅনার মামলার নিয়মে কিছু মূল পরিবর্তন করা হয়েছে। পরিবর্তন গুলো হলো:

  • সময় সীমা: সরকার চেক ডিজঅনার মামলা দায়ের এবং নিষ্পত্তির জন্য কঠোর সময়সীমা আরোপ করেছে। যে তারিখে চেক বাউন্স হয়েছে তার এক মাসের মধ্যে অভিযোগ দায়ের করতে হবে। যে তারিখে অভিযোগ দায়ের করা হয়েছিল তার ছয় মাসের মধ্যে মামলাটি নিষ্পত্তি করতে হবে।
  • এখতিয়ার: চেক ডিজঅনার মামলা এখন মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট এবং সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট দ্বারা শুনানি করা হয়। এটি আগের ব্যবস্থা থেকে একটি পরিবর্তন, যেখানে এই মামলাগুলি জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেটদের দ্বারা শুনানি হয়। সরকার বিশ্বাস করে যে নতুন ব্যবস্থা দ্রুত এবং আরও দক্ষ মামলা নিষ্পত্তির ক্ষেত্রে বিশেষ ভূমিকা পালন করবে।
  • অপরাধ চক্রবৃদ্ধি: সরকার চেক ডিজঅনার অপরাধের ক্ষেত্রে নেগোসিয়েশনের জন্য একটি নতুন বিধানও চালু করেছে। এর অর্থ হল ড্রয়ার এবং প্রাপক একটি নিষ্পত্তিতে পৌঁছাতে এবং মামলা প্রত্যাহার করতে পারে। যাইহোক, অপরাধের নেগোসিয়েশন শুধুমাত্র তখনই সম্ভব যদি ড্রয়ার সুদ এবং খরচ সহ চেকের সম্পূর্ণ অর্থ প্রদান করে।

চেক ডিজঅনার মামলা নিয়ে আরো পড়ুন

আইনি নোটিশ পাওয়ার পর যদি ড্রয়ার নির্ধারিত সময়ের মধ্যে অর্থ প্রদান করতে ব্যর্থ হয়, তাহলে প্রাপক ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে মামলা দায়ের করতে পারেন।

যদি সময়ের মধ্যে মামলা না করেন তাহলে কি আর কোনো আইনি সহায়তা পাওয়া যাবে না? অবশ্যই যাবে। গ্রহিতা মূল আইন, অর্থাৎ The Penal Code 1860 (দণ্ডবিধি ১৮৬০) এর ৪০৬ ও ৪২০ ধারা অনুযায়ী ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে প্রতারণার মামলা করতে পারবেন। উক্ত আইন এর ৪০৬ ধারা অনুযায়ী ৩ বৎসর পর্যন্ত এবং ৪২০ ধারা অনুযায়ী সর্বোচ্চ ৭ বৎসর পর্যন্ত কারাদণ্ড বা অর্থদন্ড অথবা উভয় দন্ডে দন্ডিত হবেন। উক্ত দুইটি ধারায় থানায় এবং ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে উভয় স্থানে মামলা করা যাবে। 

ADVERTISEMENT

আসুন আমরা দেখে নেই চেক ডিজঅনার মামলার লিগ্যাল নোটিশ দেওয়ার পদ্ধতি, মামলার জন্য প্রয়োজনিয় কাগজপত্র কি কি, মামলা করার নিয়ম এবং আরো কিছু গুরুত্বপূর্ণ বিষয়।

চেক ডিজঅনার মামলার লিগ্যাল নোটিশ দেওয়ার পদ্ধতি

একাউন্টে যথেষ্ট টাকা না থাকার পরও যদি কাউকে চেক দেয়া হয় এবং এই চেক ডিজঅনার হলে পরবর্তি ৩০ দিনের মধ্যে চেক ডিজঅনার মামলার লিগ্যাল নোটিশ দেয়া যাবে। নোটিশ দেয়া যাবে নোটিশ দেয়ার যে নিয়ম গুলো আছে তা মেনেই। আপনি সরাসরি চেক দাতার কাছে বা ডাক যোগে তার কাছে নোটিশ পাঠাতে পারবেন।

নোটিশ পাঠানোর উপায় গুলো একনজরে

  • চেক দাতাকে সরাকরি নটিশ পাঠিয়ে।
  • মেইলের মাধ্যমে নটিশের কপি পাঠিয়ে।
  • ডাক যোগে নোটিশ ঠিকানায় পাঠিয়ে।
  • জনপ্রিয় দৈনিক পত্রিকা গুলোতে নোটিশ বিজ্ঞপ্তি আকারে ছাপিয়ে।

মামলা করার জন্য প্রয়োজনিয় কাগজ পত্র

  • মামলার একটি দরখাস্ত।
  • মূল চেকের একটি কপি।
  • ডিসঅনার স্লিপের একটি কপি।
  • লিগ্যাল নোটিশের একটি কপি।
  • লিগ্যাল নোটিশ প্রেরণের একটি প্রমাণ কপি, যেমন: ডাক যোগে পাঠালে সেখানে পাওয়া রশিদের কপি।

প্রয়োজনে আরো কিছু ডকুমেন্ট দরকার হতে পারে।

ADVERTISEMENT

চেক ডিজঅনার মামলা করার নিয়ম

যখন কোনো একটি চেক ডিজঅনারের শিকার হয় তখন কখনো কখনো এই পরিস্থিতিতে আইনি পদক্ষেপ নেয়ার দরকার হয়। সেকারণে চেক ডিজঅনার মামলা করার নিয়ম এবং পদ্ধতি বোঝা ব্যক্তি এবং ব্যবসার জন্য একইভাবে গুরুত্বপূর্ণ।

বাংলাদেশের ম্যাজিস্ট্রেট আদালত চেকের ডিজঅনার মামলা পরিচালনা করে। আদালত উভয় পক্ষের দ্বারা উপস্থাপিত প্রমাণ পরীক্ষা করে রায় দেবেন। সেই সাথে মামলা করার জন্য আরো কিছু বিষয়:

  • শুধুমাত্র চেকের প্রাপকই চেকের অসম্মানের জন্য মামলা করতে পারেন।
  • চেকের ড্রয়ারটি যদি একটি কোম্পানি হয়, তাহলে অবশ্যই কোম্পানি এবং চেকে স্বাক্ষরকারী ব্যক্তিগত পরিচালক বা কর্মকর্তার বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করতে হবে।
  • মামলা শেষ হওয়ার আগেই চেকের ড্রয়ার মারা গেলে মামলাটি খারিজ হয়ে যাবে।
  • এটি লক্ষ করা গুরুত্বপূর্ণ যে একটি চেক অসম্মান মামলা একটি ফৌজদারি মামলা। যদি আপনি একটি চেকের অসম্মান করার জন্য দোষী সাব্যস্ত হন, তাহলে আপনার একটি অপরাধমূলক রেকর্ড থাকতে পারে। তাই চেক অসম্মানের মামলা দায়ের করার আগে একজন আইনজীবীর সাথে পরামর্শ করা গুরুত্বপূর্ণ।

আদালত যদি প্রাপকের পক্ষে রায়

ADVERTISEMENT

Similar Posts

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *